বাচ্চারা শাক খেতে চায় না? ঝটপট রান্না করুন “পালং রাইস”

বাচ্চারা শাক খেতে চায় না? ঝটপট রান্না করুন “পালং রাইস”

বাচ্চারা শাক খেতে চায় না মোটেও? তাহলে ঝটপট রান্না করে ফেলুন পালং শাকের স্বাদে মজাদার পালং রাইস। বাচ্চারা তো শখ করে খাবেই, বড়দেরও ভালো লাগবে খুব। চমৎকার রেসিপিটি দিয়েছেন লুবনা নোমান।

উপকরণ:
১.পোলাও চাল দুই কাপ
২.পালংশাক কুচি দুই কাপ
৩.হাফ কাপ হাড় ছাড়া মুরগীর মাংস
৪. ১ টি ডিম
৫.পেয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ
৬.কাঁচা মরিচ কয়েকটা
৭.ধনে পাতা কুঁচি ৬ টেবিল চামচ
৮.আদা বাটা বা চেঁচা, ১ টেবিল চামচ
৯.রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ
১০.গোলমরিচ গুঁড়ো আধা চা চামচ
১১.লবন স্বাদ অনুযায়ী
১২.তেল ৫ টেবিল চামচ
১৩.এক চামচ ঘি
১৪.সয়াসস ২ টেবিল চামচ
১৫.লেবুর রস ১ চা চামচ
১৬.পানি

প্রস্তুত প্রণালী:
১.চাল পানিতে সামান্য লবন যোগে সিদ্ধ করে ফুটিয়ে নিন। বেশি নরমও নয়, আবার বেশী সিদ্ধ নয়। ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে চাল গুলো ঝরঝরে করে ফেলুন এবং পানি ঝরিয়ে রেখে দিন। পালংশাক সামান্য লবণ দিয়ে সিদ্ধ করে নিন ।

২. এবার সিদ্ধ পালংশাক , ধনে পাতা কুঁচি সামান্য লবণ দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন।

৩. ১ টি ডিম ফেটিয়ে সামান্য তেল দিয়ে ডিমের ঝুরি বানিয়ে ফেলুন । লক্ষ্য রাখবেন যেন ঝর ঝরে হয়ে যায়।

৪.এবার কড়াইতে তেল গরম করুন, এক চামচ ঘি দিতে পারেন। প্রথমে তেল গরম হয়ে গেলে এক চিমটি লবন যোগে পেয়াজ কুচি ও আদা বাটা , রসুন কুচি ভাজুন এবং চিকেন গুলো দিয়েও ভেজে নিন।

৫.এবার ধীরে ধীরে পালংশাক , ধনে পাতা কুঁচি পেস্ট দিয়ে দিন এবং ভাজুন ।

৬.এবার পানি ঝরিয়ে রাখা ভাত ছিটিয়ে দিন। মিক্স করতে থাকুন । ভাত ৭-৮ মিনিট ভাজুন। সয়াসস , গোলমরিচ ও লেবুর রস দিন । এবার ডিমের ঝুরি (যা আগে করে রাখা হয়েছিল) দিয়ে নেড়ে চেড়ে নামিয়ে নিন।এবার পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত পালং রাইস।

Leave a Comment