ঘুম ভাঙার পরে এই কাজটি করেন না?

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মনস্তত্ত্ব বিভাগের গবেষকরা জানাচ্ছেন, দিনটিকে ভালভাবে কাটাতে গেলে ঘুম ভাঙার অব্যবহিত পরেই করতে হবে অন্য কিছু।

 

সকালে ঘুম ভাঙার ঠিক পরে প্রথম কাজটিই আপনি কী করেন? কেউ ঘুম থেকে উঠেই টয়লেটে দৌড়ন, কেউ বা ঘুম ভাঙার পরেও বিছানায় শুয়ে গড়িমসি করতে ভালবাসেন, কেউ আবার ঘুম থেকেই উঠেই হাতে তুলে নেন মোবাইল, চেক করেন বন্ধুবান্ধবদের মেসেজ বা অন্য কাজের জিনিস। কিন্তু এগুলো কোনওটাই ঠিকঠাক দিন শুরু করার পক্ষে আদর্শ অভ্যেস নয়। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মনস্তত্ত্ব বিভাগের গবেষকরা জানাচ্ছেন, দিনটিকে ভালভাবে কাটাতে গেলে ঘুম ভাঙার অব্যবহিত পরেই করতে হবে অন্য কিছু।

 

হার্ভার্ডের গবেষকদের দাবি, ঘুম থেকে ওঠার পরেই প্রথম করণীয় কাজটি হল আড়মোড়া ভাঙা। যেমন-তেমন আড়মোড়া নয়, সম্পূর্ণ শরীরকে টানটান করে মেলে ধরার মতো আড়মোড়া, মানে ইংরেজিতে যাকে বলে ফুল স্ট্রেচ। গবেষকরা বলছেন, এই কাজটি না করে দিন শুরু করলে, তা হবে একটি গুরুতর ভুল।

 

কিন্তু কেন? গবেষকদের দাবি, আসলে এইভাবে আড়মোড়া ভাঙাকে বলে পাওয়ার পোজিং। এটা শরীর ও মস্তিস্কের পক্ষে বিশেষ উপকারী। গবেষকদলের অন্যতম সদস্য অ্যামি কাডির ব্যাখ্যা, ‘আড়মোড়া ভাঙার বিশেষ ভঙ্গিটি আত্মবিশ্বাসী মানুষদের ভঙ্গি। এটা একজনের মানুষের অন্তর্নিহিত শক্তির প্রকাশক। যখন আপনি মানসিকভাবে দৃঢ় মানুষের শারীরিক মুদ্রা অনুকরণ করেন, তখন আপনার মস্তিস্কে বিশেষ বার্তা পৌঁছয়। মস্তিস্ক আপনাকে যথার্থই আত্মবিশ্বাসী করে তোলে।’

 

তাহলে এইভাবে আড়মোড়া ভেঙে দিন শুরু করলে ঠিক কী উপকার হয়, এবং না করলেই বা ক্ষতিটা কী? অ্যামির ব্যাখ্যা, ‘আপনি যদি গোটা দিনটা আত্মবিশ্বাস, মানসিক দৃঢ়তা ও সাহসকে সঙ্গী করে চলতে চান, তাহলে সকালে উঠে গোটা শরীরকে টানটান করে আড়মোড়া আপনাকে ভাঙতেই হবে। নতুবা সারা দিনটা আপনার কাটবে মনমরা, নিরুদ্যম ও উদ্বিগ্ন অবস্থায়।’

 

বিষণ্ণ অবস্থায় সারা দিন কাটাতে কারই বা ভাল লাগে! কাজেই এবার থেকে ঘুম ভাঙার পরে বিছানা ছাড়ার পরে প্রাণ ভরে আড়মোড়া ভাঙতে ভুলবেন না।

Updated: January 9, 2017 — 6:12 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bdtips © 2015