রানা প্লাজার নারী শ্রমিক এখন দেহ ব্যবসায়ী! (ভিডিওসহ)

6946-768x439বাড়িতে সবাই জানে আমি চাকরি করি, আসলে আমি যে কোন চাকরি করি এটা কেউ জানে না। আমি খুব কষ্টের মধ্যে আছি। এটাতো কাউরে আমি জানতে দেই না। শুনে বাড়িতে বাবা মা হার্টফেল করে মারা যাবেন। আমার ছেলে মেয়েরে কে দেখবেনে, আমার ছেলে মেয়েরে দেখার জন্য কেউ থাকবে না।’

 
এ কথাগুলো বলছিলেন, রানা প্লাজা দুর্ঘটনায় আহত এক অভাগা নারী। শ্রমিক হিসেবে জীবন শুরু করলেও এখন তিনি বেছে নিয়েছেন অন্য পেশা। নিজের দেহ ব্যবসা করে এখন বাঁচিয়ে রাখছেন সন্তানদের।
এই নারী দুর্ঘটনার জন্য এক লাখ টাকা অনুদান পেলেও তা হাসপাতালে থাকা অবস্থায় তুলে দেন স্বামীর হাতে। আর স্বামী তাকে হাসপাতালে ফেলে রেখেই টাকা নিয়ে পালিয়ে যান।

 
আরও এক নারী জানিয়েছে, তাকে এখন আর কেউ দেখে না। সেও বেছে নিয়েছেন পতিতাবৃত্তি।
হৃদয় নামে এক যুবক তিনি জানান, রানা প্লাজার পোশাক কারখানায় কাজ করে ভালোই চলছিল তার জীবন। তবে দুর্ঘটনার সময় তিনি তার একটা পা হারান। এরপর তার স্ত্রী তাকে ফেলে চলে যান। আবার ফিরে আসেন। কিছুদিন পর আবার চলে গেছেন। এমনকি গর্ভের ৬ মাসের বাচ্চাকেও নষ্ট ফেলেন ওই নারী। এখন হৃদয় একাই থাকনে। বর্তমানে তিনি একটা ওষুধের দোকান দিয়েছেন।

 
এ রকম অনেকেই খুব বাজে জীবন কাটাচ্ছেন। এদের দুর্বস্থার কথা শুনলে ও দেখলে চোখের পানি ধরে রাখা যায় না। চলুন পাঠক বাকিটা আমার ভিডিওতে দেখে নেই।

ভিডিও

Updated: August 18, 2016 — 1:04 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bdtips © 2015