আমার প্রতিদিন ৩০ জন পুরুষের শয্যাসঙ্গী হতেই হবে!

amiএযেন রূপকথার গল্প থেকে হঠাত করে চরম বাস্তবের মুখোমুখি হয়ে পড়া! বাস্তব অবস্থাটা যে এতটাই নিষ্ঠুর তা কল্পনাতেও ভাবতে পারেনি কার্লা জ্যাসিন্টো। আর সেই কারণে গত চারবছরে ৪৩ হাজার ২০০ বার ধর্ষণের শিকার হতে হয়েছে তাঁকে।

 

শুধু তাই নয়, যার হাতে তাঁকে বেচে দেওয়া হয়, সেখানে তাঁকে নির্দেশ দেওয়া হয় প্রতিদিন ৩০ জন পুরুষের শয্যাসঙ্গী হতে হবে তাঁকে। এবার মনে হচ্ছে তো বাস্তবটা কতটা কঠিন! এবার পুরো ঘটনায় আসা যাক…

 

বারো বছর বয়সে কার্লা জ্যাসিন্টো প্রেমে পড়েন এক যুবকের। জ্যাসিন্টোর মনে হয়, এই ব্যক্তিউ হয়তো তাঁর স্বপ্নের রাজপুত্র। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই পাল্টে যায় সবকিছু। একটি বড়সড় নারী-পাচারচক্রের হাতে তুলে দেওয়া হয় তাঁকে।

 

এই চক্র জ্যাসিন্টোকে জোর করে দেহব্যবসায় নামায়। কথা না শুনলেই চলত অকথ্য অত্যাচার। কিল, চড়, ঘুষি, লাথি, মুখে থুথু দেওয়া তো প্রত্যেকদিনের স্বাভাবিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। এমনকি, তাঁকে গরম লোহার রড দিয়ে পুড়িয়ে দিতেও গিয়েছিল বলে জানিয়েছে জ্যাসিন্টো।
এরপর কার্লা গত চার বছরে গোটা মেক্সিকোর বিভিন্ন জায়গা ঘুরে বেরিয়েছে, এবং প্রতিরাতে তিরিশ জন পুরুষের শয্যসঙ্গী হতে হয়েছে তাঁকে। এক চরম এবং করুণ কাহিনী। যা ভাবলে যে কোনও সুস্থ মানুষ শিউরে উঠবে!

Updated: September 2, 2016 — 1:16 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

bdtips © 2015