loading...

ব্রা পরতে যে ভুল করে মেয়েরা

news_img-500x280ব্রা বা বক্ষ বন্ধনীর সাথে মেয়েদের ভালবাসা এবং ঘৃণার সম্পর্ক বিদ্যমান। আকর্ষণীয় ও সঠিক মাপের ব্রা সবাই পছন্দ করে। কেননা ভুল মাপের ব্রা নারীদের সৌন্দর্য কমিয়ে দেয় শুধু তাই নয়, এটা শরীরের জন্যও ক্ষতিকর। তাই ব্রা পরিধানের কিছু নিয়ম জেনে নিন।

 

১. অধিকাংশ মেয়েরাই তাদের ব্রা বা বক্ষ বন্ধীর ফিতা ভুল ভাবে পরিধান করেন। অনেকে অতিরিক্ত ঢিলা বা আটকা ভাবে ব্রা পরিধান করে থাকেন। যার কারণে তাদের স্তনের সৌন্দর্য হারিয়ে যায় এবং শারীরিক সমস্যাও হয়।

 

২. অনেক মেয়েরা এমন ব্রা পরিধান করে থাকেন, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

 

৩. দেহের জন্যে কোনটি সঠিক মাপের হবে তা জেনে নিতে একটি মেজারমেন্ট টেপ নিন। পিঠের পেছন থেকে ধরে টেপটি সামনের দিকে নিয়ে আসুন। যে মাপটি পাবেন তা বাড়তি মনে হলে সবচেয়ে কাছের পূর্ণ সংখ্যার মাপটি গ্রহণ করুন। এবার স্তনের ঠিক নিচেই পাঁজরের মাপ নিন। একইভাবে কাছের পূর্নাঙ্গ সংখ্যাটি গ্রহণ করুন।

 

৪. ব্রার কাপে স্তন পরিপূর্ণভাবে সেঁটে যাবে। ঢিলেঢালা বা বেশি আঁটোসাঁটো হবে না। এই মাপটি নিতে স্তনের সর্বোচ্চ স্ফীত অংশের মাপ নিন। যে মাপটি পাবেন তা থেকে এক একক মাপ কম নিন। যদি কাপ সাইজ পান ৩৬ ইঞ্চি এবং ব্যান্ড সাইজ পান ৩৪ ইঞ্চি, তাহলে পার্থক্য হলো ২ ইঞ্চি। এই পার্থক্য ‘বি’ কাপ নির্দেশ করে।

 

৫. ব্রার হুক লাগানোর পর পেছন দিকটা ওপরের দিকে টানটান অবস্থায় থাকবে না। এক্ষেত্রে প্রথম, দ্বিতীয় বা তৃতীয় সেট হুক লাগিয়ে দেখুন, কোনটি স্বস্তিদায়ক হয়।

 

মনে রাখবেন, ব্রা আপনার সামনের অংশকে সাপোর্ট দেবে। কিন্তু পেছনের অংশ নয়। ব্রায়ের কাপের পাশ থেকে টিস্যুর কিছু অংশ বেরিয়ে পড়লে বুঝে নেবেন, এর সাইজ কিছুটা ছোট হয়ে গেছে। ব্রার দুটি কাপের সংযোগস্থলটি বুকের সঙ্গে টানটান হয়ে সেঁটে থাকবে। তবে স্তনের কোনো অংশ সামান্যতম কুঁচকে থাকলে কিছুটা ঢিল দেয়া প্রয়োজন।

 

৬. বক্ষবন্ধনী সম্পর্কে কিছু ভুল ধারণা প্রচলিত রয়েছে। অনেকেই ভাবেন, ডি সাইজ কাপটি গড় মাপের। আসলে তা নয়। সব সাইজের ডি মাপ আছে। যদি দুই হাতের নিচের নিকে ত্বক ব্রার বন্ধনীতে কুঁচকে থাকে, তবে আরেকটু বড় মাপের ব্রেসিয়ার লাগবে।

 

৭. এমন দোকান থেকে ব্রেসিয়ার কিনতে যাবেন না যেখানে বিভিন্ন ধরনের সরবরাহ কম। ছোট সাইজ যেমন ২৮ বা ৩০ ইঞ্চি থেকে শুরু করে বড় সাইজের সব ধরনের ব্রেসিয়ার এমন দোকানে কিনতে যাবেন।

 

৮. বর্তমানে যে সাইজের ব্রা ব্যবহার করছেন সেই সাইজটি যদি গত এক বছর ধরে ব্যবহার করতে থাকেন এবং বর্তমানে মাপের ফিতায় একই মাপ আসে, বুঝবেন কোথাও ভুল হচ্ছে। এক বছরের ব্যবধানে এই মাপ বদলাতে বাধ্য।

 

৯. যদি সঠিক সাইজ না খুঁজে পান, তবে কাজ চালানোর জন্যে হলেও ভুল সাইজটি নেয়ার প্রয়োজন নেই। অন্য কোনো শপে গিয়ে খুঁজুন। ভুল সাইজের ব্রেসিয়ার স্বাস্থ্যের জন্যে মারাত্মক হুমকি।

 

১০. ঘাম নিয়ে অনেকেই ব্রা পরে থাকেন। যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই ব্রা পরিধানের সময় এ বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। তাহলে অনেক রোগ থেকে মুক্ত থাকা যাবে।

 

১১. অতিমাত্রায় স্তনের বোঁটা দেখা যায়, এমন ব্রা পরিধান করা উচিত নয়। এতে করে স্তনের বোঁটার ক্ষতি হয়। তাছাড়া সামাজিকভাবেও এটা দৃষ্টিকটূ। সূত্র: ইন্টারনেট

loading...
Updated: April 19, 2016 — 12:31 am
bdtips © 2015